Jobs

Consultants

Tanmoy Ghosh - Profile Page <- Go back to directory
উড়বি যখন প্রজাপতি, হুল ফোটাবি বোলতা View English Profile
Tanmoy Ghosh
founder & director

Region : ASIA - South Asia
Country : India
State : East India - main city: Kolkata - states: Bihar, West Bengal, Orissa, Jharkand
   
Main Service : Business Planning
Linked Profile : Click Here
Company Website : Click Here
Email : Send Mail

Other Services
Business Planning
Business Setup & Registration Consulting
Capital Funds & Investment Brokerage
Commissioning & Expediting Management
Distribution Channels
Industry Sector
Agriculture, Forestry & Livestock
Arts & Performances
Athletics & Sports
Construction
No Specific Sector

Contact Information
Company Name : Wimpact Technologies
Telephone : 25627664
GSM : 9830337753
IM Messenger : Skype
IM Account : itsmetanmoy
Company Address
Street : 375 Hridaypur station road
Street Zip : 700127
City : kolkata
Country : India
Postbox : Hridaypur, 700127

চ্যাম্প

পরিচালনা: রাজ চক্রবর্তী

 

অভিনয়: দেব, রুক্মিণী, চিরঞ্জিত, প্রিয়ঙ্কা

৫/১০

 

ঈদের বাজারে দেব এ বার প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলেন তাঁর ‘চ্যাম্প’-কে নিয়ে। রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত যে ছবিতে নায়ক দেবের বিপরীতে তাঁর নায়িকা বান্ধবী রুক্মিণী মৈত্র। অভিনেত্রী হিসেবে এটিই প্রথম ছবি রুক্মিনীর।

এক বক্সারের লড়াকু জীবন নিয়ে তৈরি হলেও ‘চ্যাম্প’ বায়োপিক নয়। ছবির শুরুতেই মহম্মদ আলি ও জর্জ ফোরম্যানের লড়াই দেখায় টিভিতে। আলি সম্পর্কে সেই বিখ্যাত  উক্তি, ‘ফ্লোট লাইক আ বাটারফ্লাই, স্টিং লাইক আ বি’-র আক্ষরিক বঙ্গানুবাদ করা সংলাপ ‘উড়বি যখন প্রজাপতি, হুল ফোটাবি বোলতা’ একাধিক বার শোনা যাবে এই ছবিতে। কিন্তু আলিই সব নয়। ছবিতে রোপ বাছাই, রিংয়ে আলোর ব্যবহার, চোখ ঢাকা হুডির ব্যবহারে হলিউডের ‘রকি’ সিরিজেরও অনুকরণ রয়েছে। শেষে ‘ফিফটি সেন্ট’ ঘরানার র‌্যাপও আছে।

ছবির গল্প পুরুলিয়ায় নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা বক্সিং অন্তপ্রাণ শিবাজি সান্যালকে (দেব) নিয়ে। যে খ্যাতির শীর্ষ থেকে পড়ে গিয়েও ফের উঠে আসবে। ‘চাঁদের পাহাড়’, ‘জুলফিকর’-এর পর এটি দেবের তৃতীয় ছবি যেখানে তাঁকে বক্সিং করতে দেখা যাচ্ছে।

 

মহম্মদ আলি যেমন এক বাইসাইকেল চোরকে ধাওয়া করতে গিয়ে বক্সিং কোচ জো ই মার্টিনের চোখে পড়ে গিয়েছিলেন তেমনই শিবাজিও চোখে পড়ে যায় বাঙালি বক্সিং কোচ বুড়ো বাগচির (চিরঞ্জিত)। সেই কলকাতায় শিবাজিকে নিয়ে এসে নিজের বাড়িতে রেখে তালিম দিতে থাকে। একজন কোচ ও খেলোয়াড়ের জীবন যে রক্ত ও ঘামের সমবায়, অস্ফুট আত্মপ্রেরণা ও চোয়াল চাপা জেদের ধানঘর তা এত অবধি ঠিকঠাকই বুঝতে পারা গিয়েছে।